১১ই জুলাই, ২০২০ ইং , ২৭শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ




৮ মে, ২০২০ , ০০:০৫ আপডেট: ৮ মে, ২০২০ ,০০:০৫

ফটোসাংবাদিক, দৈনিক পক্ষকালের সম্পাদক সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলের মুক্তি ও হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন সাবেক ছাত্রনেতারা।

বৃহস্পতিবার (৭ মে) বিভিন্ন ছাত্রসংগঠনের সাবেক ছাত্র নেতৃবৃন্দ এক যৌথ বিবৃতিতে এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে ৫৪ দিন নিখোঁজ থাকার পর গত ৩ মে বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবসে সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলকে যশোরের বেনাপোলে বাংলাদেশের মাটিতে কথিত উদ্ধার, অনুপ্রবেশ আইনে গ্রেফতার, হাতকড়া পরিয়ে পিঠমোড়া করে বেঁধে করোনা পরিস্থিতে মাস্ক না পরিয়ে আদালতে প্রেরণ, অনুপ্রবেশের সাজানো মামলায় জামিন দেয়ার পর ৫৪ ধারায় মামলা দিয়ে কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানান তারা।

সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলের আইনি সুরক্ষা ও জামিন পাওয়ার সাংবিধানিক অধিকার নিশ্চিত করা এবং তার জামিন পাওয়ার অধিকার জামিন বাধাগ্রস্ত না করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

নেতৃবৃন্দ সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলের বিরুদ্ধে সকল সাজানো ও হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

বিবৃতিতে স্বাক্ষরকারী সাবেক ছাত্র নেতৃবৃন্দরা হলেন- বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (স্ব-ত) সাবেক সভাপতি শরিফুল কবির স্বপন, বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রী সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম সুজন, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি সামসুল আলম সজ্জন, খান আসুদুজ্জামান মাসুম, বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রীর সাবেক সভাপতি হাসান ইমাম রুবেল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (স্ব-ত) সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলী হাসান তরুন, বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রীর সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুক্তার হোসেন নাহিদ, বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রীর সাবেক সভাপতি আবু নাসের অনিক, বাংলাদেশ ছাত্রকেন্দ্রের সভাপতি মহিনউদ্দিন চৌধুরী লিটন, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মানবন্দ্র দেব, ফেরদৌস আহম্মেদ উজ্জল, জাতীয় ছাত্র ঐক্যের সাবেক সভাপতি জুয়েল আহম্মেদ খান, বাংলাদেশ ছাত্র সমিতি সাবেক সভাপতি মোস্তাক আহম্মেদ, বাংলাদেশ ছাত্র আন্দোলনের সাবেক সভাপতি কনক বড়ুয়া, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. শুভাষিস সমদ্দার, সমাজবাদী ছাত্রজোটের সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাসুম উদ্দীন, বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রী সাবেক সভাপতি বাপ্পা দিত্য বসু প্রমুখ।